বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ১২:২১ পূর্বাহ্ন

আত্মসাৎ, পথশিশুদের নামে টাকা তুলে ধর্ষণ করা হতো কর্মীদের

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ৭ নভেম্বর, ২০২১
  • ৮ Time View
আত্মসাৎ, পথশিশুদের নামে টাকা তুলে ধর্ষণ করা হতো কর্মীদের
আত্মসাৎ, পথশিশুদের নামে টাকা তুলে ধর্ষণ করা হতো কর্মীদের

আত্মসাৎ করা হতো পথশিশুদের সাহায্যের নামে টাকা তুলে। রাজধানীর ৬০ থেকে ৭০টি স্পট থেকে প্রতিদিন দেড় থেকে দুই লাখ টাকা উঠানো হতো। তবে এ টাকার ৭৫ ভাগ চলে যেতো প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান আর মহাসচিবের পকেটে। বাকিটা স্বেচ্ছাসেবকদের। অবশেষে গোয়েন্দা জালে ধরা পড়েছে প্রতিষ্ঠানটির দুই শীর্ষ কর্মকর্তা। শিশু কল্যাণের কথা বলে সাত বছর ধরে এমন প্রতারণা করে আসছিল প্রথম অক্ষর ফাউন্ডেশন।

অসহায় ও সুবিধাবঞ্চিত পথশিশুদের খাবারের জন্য অর্থ সহায়তা চাইছেন তরুণ রফিকুল আজাদ। প্রথম অক্ষর ফাউন্ডেশন নামের একটি সংগঠনের স্বেচ্ছাসেবক তিনি। একটি দলে থাকে চার থেকে পাঁচজন। শপিং মল, ট্রাফিক সিগনাল কিংবা বিভিন্ন সড়কে পথচারীদের কাছ থেকে টাকা তুলতে দেখা যায় তাদের।

২০১৪ সালে যাত্রা শুরু সংগঠনটির। উদ্দেশ্য ছিল পথশিশুদের তিনবেলা খাবার জোগানো। পরিকল্পনা অনুযায়ী শুধু রাজধানীতেই প্রায় ৬০০ স্বেচ্ছাসেবক নিয়োগ দেয় তারা। গুরুত্বপূর্ণ ৬০ থেকে ৭০টি স্পটে বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষের কাছ থেকে তোলেন টাকা।

প্রতিষ্ঠানটিতে কাজ করা স্বেচ্ছাসেবকদের দাবি, প্রতিদিন তাদের সংগৃহীত টাকার পরিমাণ প্রায় ২ লাখ। তবে এ টাকার এক পয়সাও খরচ হয় না পথশিশুদের পেছনে। প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ও মহাসচিবের পকেটে চলে যায় দুই তৃতীয়াংশ। বাকি টাকা ভাগ করে দেওয়া হয় স্বেচ্ছাসেবকদের।

এক তরুণ জানান, একেকটা বক্সে তিন থেকে চার হাজার টাকা কালেকশন হয়। সেখান থেকে আমরা অর্ধেক টাকা নিতাম। আবার সেখান থেকে অক্ষর ফাউন্ডেশনের মহাসচিব টাকা রেখে দিতেন।

তাদের দাবি, প্রতারণার বিষয়টি বুঝতে পেরে যারা সরে যেতে চেয়েছেন তাদের ওপরই নেমে এসেছিল নির্যাতনের খড়গ। প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ইমন চৌধুরী নারী স্বেচ্ছাসেবকদের মাসের পর মাস জোর করে অনৈতিক সম্পর্ক করতে বাধ্য করতেন।

অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে প্রথম অক্ষর অফিসে অভিযান চালিয়ে চেয়ারম্যান ও মহাসচিবকে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। কেউ তাদের চ্যালেঞ্জ করলে করা হতো মারধর। এ রকম কিছু ভিডিও এসেছে পুলিশের কাছে।

সাত বছরে কোটি কোটি টাকা পথশিশুদের নামে আত্মসাত করেছে কথিত প্রতিষ্ঠানটি। তাদের সম্পদের খোঁজে নেমেছে গোয়েন্দারা।

ঢাকা উত্তর গোয়েন্দা বিভাগের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার কায়সার রিজভী কোরায়শী বলেন, নারী স্বেচ্ছাসেবক অনেকে ধর্ষণের অভিযোগ তুলেছেন। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও চাঁদাবাজির মামলা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
Copyright © All rights reserved © 2022 Jagoroni Tv
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com