আন্তর্জাতিক 

মিয়ানমারে খনি ধস, ১১৩ জনের মরদেহ উদ্ধার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক;
মিয়ানমারে একটি খনি ধসে পড়ার ঘটনায় বহু মানুষ প্রাণ হারিয়েছে। স্থানীয় কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এখন পর্যন্ত কমপক্ষে ১১৩টি মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে যে, দেশটির উত্তরাঞ্চলের একটি পান্নার খনি ধসে পড়েছে। বেশ কিছু প্রতিবেদনে আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে যে, কাচিন রাজ্যের হাকান্ত এলাকার ওই খনি ধসে পড়ার ঘটনায় হয়তো আরও অনেকেই মাটি চাপা পড়েছেন।
ঘটনাস্থলে নিখোঁজদের খোঁজে উদ্ধারকাজ চালিয়ে যাচ্ছেন উদ্ধারকর্মীরা। দমকল বাহিনীর পক্ষ থেকে শতাধিক প্রাণহানির বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। দমকল বাহিনী জানিয়েছে, ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে ওই খনিটি ধসে পড়েছে। এখন পর্যন্ত শতাধিক মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকাজ এখনও চলছে।
পুলিশ বলছে, ওই এলাকায় বুধবার সতর্কতা জারি করা হয়। ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে যে কোনো দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে লোকজনকে সতর্ক করা হয়েছিল। তবে লোকজন এই সতর্কতা কানেই তোলেনি। সে কারণেই এত প্রাণহানির ঘটনা ঘটল।
বিশ্বের বৃহত্তম পান্না খনি মিয়ানমারে অবস্থিত। দেশটিতে প্রতি বছরই বিভিন্ন খনি থেকে মূল্যবান এই রত্ন পাওয়া যায়। তবে সা¤প্রতিক সময়ে দেশটিতে বেশ কয়েকবার খনি ধসের ঘটনা ঘটেছে। ফলে প্রাণ হারিয়েছে বহু মানুষ। এর আগে গত বছর একটি খনিতে দুর্ঘটনায়ও শতাধিক মানুষ প্রাণ হারায়।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment

করোনাভাইরাস সতর্কতায়

বারে বারে হাত ধুই, হাঁচি কাশিতে রুমাল/টিস্যু ব্যবহার করি, ময়ালা হাতে হাত মুখ স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকি। সরকারী নির্দেশনা এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলি, ঘরে থাকি।