অপরাধ বাংলাদেশ 

ফরিদপুরে বলাৎকারের শিকার মাদরাসা ছাত্রের মৃত্যু

ফরিদপুরের চরভদ্রাসনে বলাৎকারের শিকার হয়ে আবদুর রহমান নামের ৮ বছরের এক মাদরাসাছাত্রর মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল বুধবার সকাল ১০টার দিকে ওই ছাত্রের মৃত্যু হয়। নিহত আবদুর রহমান সালথা উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়নের রাঙ্গারদিয়া গ্রামের মাওলানা আবদুস সোবহানের ছেলে। সে চরভদ্রাসন উপজেলার আবদুল সিকদারের ডাঙ্গি মাদরাসার ছাত্র ছিল। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই মাদরাসার মোহতামিম মুফতি আবদুস ছবুর, শিক্ষক মাওলানা আছাদ হোসাইন, মাওলানা মোহতাছিন বিল্লাহ, কেয়ারটেকার সায়েদুর ইসলাম, ছাত্র আবদুর রহমান ও রবিউল ইসলামকে থানায় নিয়েছে পুলিশ। ওই মাদরাসার শিক্ষক মো. আব্দুল্লাহ জানান, গতকাল বুধবার ফজরের নামাজের জন্য ওযু করার সময় ওই শিক্ষার্থী বমি করছিল। কয়েক দফা বমি করলে তাকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নেয়া হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. ওয়াহিদুজ্জামান জানান, প্রাথমিকভাবে বলাৎকারের আলামত পাওয়া গেছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। শিশু আবদুর রহমানের বাবা মাওলানা আবদুস সোবহান জানান, মাদরাসা থেকে খবর পেয়ে মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে ফরিদপুর হাসপাতালে নিয়ে আসি। তার শরীরে নির্যাতন চালানো হয়েছে সেটা স্পষ্ট। এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তিনি। চরভদ্রাসন থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ (ওসি) হারুন অর রশীদ জানান, এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই মাদরাসার পরিচালক, দুই শিক্ষক, কেয়ারটেকার ও দুইজন ছাত্রকে থানায় আনা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment

করোনাভাইরাস সতর্কতায়

বারে বারে হাত ধুই, হাঁচি কাশিতে রুমাল/টিস্যু ব্যবহার করি, ময়ালা হাতে হাত মুখ স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকি। সরকারী নির্দেশনা এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলি, ঘরে থাকি।