অন্যান্য 

ডিপ ক্লিনজিং পদ্ধতিতে ত্বকের যত্ন নিন

ত্বকের যত্ন নিতে সবথেকে বেশী প্রয়োজন ত্বক পরিষ্কার রাখা। কিন্তু তা বলে কেবল ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুলে কিংবা ফেসপ্যাক ব্যবহার করলেই হবে না। যদি ত্বককে সত্যিই পরিষ্কার রাখতে চান, তাহলে প্রয়োজন ডিপ ক্লিনজিং বা ত্বককে খুব ভালভাবে পরিষ্কার করা। কিন্তু বেশিরভাগ মানুষই জানেন না এই ডিপ ক্লিনজিং কিভাবে করে? বরং ভুল ভাবে যত্ন নিতে গিয়ে ত্বকের ক্ষতি করে বসেন৷ তাই জেনে নিন ত্বক ডিপ ক্লিন করার সঠিক পদ্ধতি।

কিভাবে করবেন ডিপ ক্লিনজিং

এই পদ্ধতিটি সবথেকে ভালো হয় যদি আপনি বাইরে থেকে এসে করতে পারেন। বাজারে নানা রকমের ক্লিনজিং মিল্ক বা লোশন পাওয়া যায়। এর মধ্যে নিভর্রযোগ্য ও দামি ক্লিনজিং লোশনটি বেছে নেবেন ও ব্যবহারের আগে প্রস্তুতকারকের তরফে দেয়া নির্দেশাবলি ভালোভাবে পড়ুন৷

প্রথমে মুখটা ভাল করে জল দিয়ে ভিজিয়ে নরম তোয়ালে দিয়ে আলতো করে মুছে নিন। একটু ভেজা ভেজা থাকা অবস্‌হায় অল্প পরিমাণ লোশন বা ক্লিনজিং মিল্ক বা লোশনটি মুখের ত্বকে, ঘাড় ও গলার ত্বকে লাগিয়ে ম্যাসাজ করতে থাকুন হালকাভাবে।

ম্যাসাজ করারও একটি নির্দিষ্ট পদ্ধতি হবে৷ আঙুল চালাবেন নিচ থেকে ওপরের দিকে। কপালে ম্যাসাজ করবেন দু’হাতের মাঝের আঙুলের সাহায্যে নিচ থেকে ওপর দিকে। দু’চোখের চার পাশটা ম্যাসাজ করুন বুড়ো আঙুলের সাহায্যে অর্ধচক্রাকারে। দু’গালে ম্যাসাজ করবেন চিবুক থেকে কানের পাশ পর্যন্ত নিচ থেকে উপর দিকে। মাথা পেছনে হেলিয়ে টান টান গলায় ম্যাসাজ করুন দু’হাতের সাহায্যে নিচ থেকে উপরে দিকে। নাক ম্যাসাজ করবেন গোড়া থেকে ডগার দিকে। কিন্তু ঘাড় ম্যাসাজ করবেন উপর থেকে নিচের দিকে।

দুই থেকে তিন মিনিট ম্যাসাজ করার পর মুখ, গলা ও ঘাড়ের ক্লিনজিং মিল্ক বা লোশন তুলোর সাহায্যে তুলে ফেলুন। তারপর আবার ভেজা তুলা বোলাতে থাকুন মুখের ওপরে। এরপর আপনার ব্যবহৃত ফেসওয়াশ দিয়ে ধুয়ে ফেলুন মুখটা। মনে রাখবেন, ফেসওয়াশ কখনই ৩০/৪০ সেকেন্ডের বেশী ত্বকে রাখবেন না, এতে ত্বকের ভীষণ ক্ষতি হয়।

তবে বেশিক্ষণ ধরে বা বেশি পরিমাণে ত্বকে ক্লিনজিং মিল্ক ব্যবহার করবেন না। কারণ এতে ত্বক শুষ্ক হয়ে যেতে পারে। শুধু ত্বকের ধুলো-ময়লা, মেকআপ তোলার জন্য যতটা পরিচ্ছন্নতা প্রয়োজন ঠিক ততটাই করবেন।  আর যাদের ত্বক শুষ্ক তারা জল ব্যবহার না করে শুধু কোনো সফট বা ন্যাচারাল কোল্ডক্রিম ম্যাসাজ ভেজা কাপড় দিয়ে মুছে নিতে পারেন। বিশেষ করে শীতের দিনে।  ত্বক পরিষ্কার করার জন্য উষ্ণ জল ব্যবহার করুন। এতে ত্বকের লোমকূপগুলো খুলে যাবে এবং ত্বক ভালোভাবে পরিষ্কার হবে।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment