রাজনীতি 

ইভিএমে সুষ্ঠ ভোট হবে না: ফখরুল

ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন বা ইভিএমে ভোট হলে ঢাকার দুই সিটির নির্বাচন ‘সুষ্ঠু হবে না’ বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বুধবার শেরেবাংলা নগরে জিয়াউর রহমানের কবরে শ্রদ্ধা নিবেদন করতে গিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে এ বিষয়ে কথা বলেন তিনি। ফখরুল বলেন, তারা (নির্বাচন কমিশন) বলেছে যে, ইভিএমের মাধ্যমে সিটি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ হবে। যেটা (ইভিএম) সম্পূর্ণভাবে ক্রটিযুক্ত এবং আমরা এটাকে প্রত্যাখান করেছি। আমরা বলেছি যে, এটা সঠিক হবে না। এই ইভিএমে জনগণের রায় প্রতিফলিত হবে না। আগামী ৩০ জানুয়ারি ভোটের দিন রেখে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন ইতোমধ্যে জানিয়েছে, সবকেন্দ্রেই ভোটগ্রহণ হবে ইভিএমে। ফখরুল বলেন, আমরা মনে করি যে, তাতে নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়ার সম্ভাবনা খুব কম। বরাবরই ইভিএম নিয়ে আপত্তি জানিয়ে আসা বিএনপি নেতাদের সন্দেহ, যন্ত্রে ভোটগ্রহণ হলে ‘ম্যানিপুলেট’ করার এবং ফলাফল ‘নিয়ন্ত্রণ’ করার সুযোগ থেকে যাবে। তবে নির্বাচন কমিশন বরাবরই বলে এসেছে, ইভিএমে বরং কারচুপির সুযোগ কমবে। সংশয় নিয়েও ঢাকার সিটি নির্বাচনে বিএনপির অংশগ্রহণের কারণ ব্যাখ্যা করে মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা খুব স্পষ্ট করে বলেছি যে, বর্তমান সরকারের অধীনে, বর্তমান নির্বাচন কমিশনের পরিচালনায় কোনো নির্বাচনই সুষ্ঠু ও অবাধ হতে পারে না। জনগণের যে রায়, সেই রায়টা প্রতিফলিত হবে না। তারপরও যেহেতু আমরা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করি, সেজন্য আমরা নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি। নতুন বছরের প্রত্যাশা খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার চেষ্টা বা সরকারবিরোধী আন্দোলনে ২০১৯ সালে সাফল্যের দেখা পায়নি বিএনপি। তবে নতুন বছর সামনে রেখে আশায় বুক বাঁধতে চান মির্জা ফখরুল। সাংবাদিকদের প্রশ্নে তিনি বলেন, নতুন বছরে আমাদের সবসময়ই প্রত্যাশা থাকে যে, আমরা একটা সুন্দর বছর দেখতে পাব। আমরা মনে করি যে, নতুন বছরে জনগণ ঐক্যবদ্ধ হবে, সংগ্রাম করবে, লড়াই করবে। অসত্যকে পরাজিত করে, অসুন্দরকে পরাজিত করে তারা সত্য ও সুন্দরকে প্রতিষ্ঠিত করবে, গণতন্ত্রকে প্রতিষ্ঠিত করবে এবং দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে গণতন্ত্রকে মুক্ত করবে। খ্র্রিস্টান ধর্মালম্বীদের বড়দিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, খ্র্রিস্টান ধর্মালম্বীদের বড় উৎসব বড়দিন। আমি বড়দিনের শুভেচ্ছা জানাচ্ছি বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বের খ্রিস্টান ধর্মালম্বীদের আমরা প্রত্যাশা করছি, এর মধ্য একটা সুন্দর ও শান্তিময় পরিবেশ গড়ে উঠবে।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment

করোনাভাইরাস সতর্কতায়

বারে বারে হাত ধুই, হাঁচি কাশিতে রুমাল/টিস্যু ব্যবহার করি, ময়ালা হাতে হাত মুখ স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকি। সরকারী নির্দেশনা এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলি, ঘরে থাকি।